নতুনদের জন্য ওয়েব ডেভলপমেন্ট শেখার কিলার গাইডলাইন


আপনি ওয়েব ডেভলপমেন্ট শিখতে আগ্রহী? তাহলে আপনি নিশ্চই কোথা থেকে শিখবেন, কিভাবে শিখবেন সেটা নিয়ে ভাবতে শুরু করে দিয়েছেন। ওয়েল, আপনি যদি এগুলো নিয়ে ভেবেই থাকেন তাহলে এই পোস্ট টা শেষ পর্যন্ত পড়তে থাকুন আশা করি আপনার কাজে লাগবে। তাহলে চলুন পুরো বিষয়টি কিছু আলাদা আলাদা অংশে আলোচনার মাধ্যমে জেনে নেওয়া যাক। চলুন প্রথমেই জেনে নেওয়া যাক একটি ওয়েবসাইট কি, এটি কিভাবে কাজ করে এবং এটা তৈরি করার জন্য কি কি প্রয়োজন।


ওয়েবসাইট কি?

একটি ওয়েবসাইট হলো সার্ভারে হোস্ট করা এক একাধিক ওয়েবপেজের সমষ্টি। সেটা একটি মাত্র ওয়েবপেজ দিয়ে তৈরি একটি সিম্পল সাইট হতে পারে আবার অনেক জটিল ডেটাবেসে বহু সংখ্যক ওয়েবপেজের সমন্বয়ে তৈরি একটি কমপ্লেক্স ওয়েবসাইট ও হতে পারে। আমরা যখন অনলাইনে কনো ওয়েবসাইট ভিজিট করি তখন সেই ওয়েবসাইট কোনো একটি সার্ভার কম্পিউটার থেকে আমাদের মোবাইল বা কম্পিউটারে লোড হয়।


একটি ওয়েবসাইট কিভাবে কাজ করে?

একটি ওয়েবসাইট মূলত কিছু ফাইলের সমষ্টি যেগুলো সার্ভার কম্পিউটারে হোস্ট করে রাখা হয়। সার্ভার কম্পিউটার গুলো ওয়েবসাইটের ফাইলগুলো স্টোর করে রাখে। এই সার্ভার কম্পিউটার গুলো ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েব নেটওয়ার্কের মাধ্যমে বিশ্বব্যাপি সংযুক্ত হয়। এর পর আপনি ব্রাউজার দিয়ে যখন কোনো ওয়েবসাইট ভিজিট করেন তখন আপনার ডিভাইজ ইন্টারনেটের মাধ্যমে সার্ভার কম্পিউটারের সাথে কানেক্ট হয়ে ওয়েবপেজটি প্রদর্শন করে। এক্ষেত্রে আপনার ডিভাইজ ক্লায়েন্ট হিসেবে কাজ করে।


ওয়েব ডেলপমেন্ট কি?

একটি পূর্ন ওয়েবসাইট তৈরি করার যে পুরো প্রসেস সেটাই ওয়েব ডেভলপমেন্ট। সাধারণভাবে একটি ওয়েবসাইটের জন্য হোস্টিং কেনা, ডোমেইন কেনা, সাইটের জন্য প্রয়োজনীয় ওয়েবপেজ তৈরি করা, সেগুলোকে একত্রে জুড়ে দেওয়া, সাইটের সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন করা সহ আরো যেসব কাজ আছে সেগুলো সবগুলো মিলেই ওয়েব ডেভলপমেন্ট। একটি ওয়েবসাইট ডেভলপ করার ক্ষেত্রে যে একজন মানুষই সব কাজ করবে তা কিন্তু নয়, কেননা একজন মানুষ কখনোই সব কাজে সমান পারদর্শী হয় না। তাই ওয়েব ডেভলপমেন্ট করার ক্ষেত্রে এর প্রতিটি কাজের জন্য আলাদা আলাদা লোক নিয়োজিত থাকে।


একটি পুর্ন ওয়েবসাইট তৈরির জন্য আপনার যা থাকা চাই

একটি পুর্ন ওয়েবসাইট তৈরির জন্য আপনার অবশ্যই প্রয়োজনীয় কিছু প্রোগ্রামিং ভাষার উপর দক্ষতা থাকতে হবে। এর পর একটি ইউনিক ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য আপনার থাকতে হবে কিছু ইউনিক ক্রিয়েটিভিটি এবং চিন্তাভাবনা। আপনার অবশ্যই এই ধারণা থাকতে হবে যে কিভাবে লেআউট গুলো সাজালে একটি ওয়েবসাইট সুন্দর ও গোছানো দেখাবে। একটি সুন্দর ও আকর্ষণীয় সাইট তৈরি করার জন্য আপনাকে সাইটের কালার কম্বিনেশন ঠিক রাখতে হবে। অনেকে বিগিনার ওয়েব ডিজাইনারদের দেখা যায় তারা সাইটে বিভিন্ন কালার ইউজ করে সাইটের বারোটা বাজিয়ে দেন। তখন একটি গোছানো ওয়েবসাইটও অগোছালো মনে হয়। আর বর্তমান প্রেক্ষাপট অনুযায়ী একটি ওয়েবসাইট অবশ্যই রেসপনসিভ রাখতে হবে।


ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর জন্য প্রয়োজনীয় প্রোগ্রামিং ভাষাগুলো


একটি ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য অবশ্যই কিছু প্রোগ্রামিং ভাষা জানতে হয়। তাই এই অংশে প্রয়োজনীয় প্রোগ্রামিং ভাষাগুলো নিয়ে আলোচনা করা হবে।


HTML:Hyper Text Markup Language

একটি ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য অবশ্যই যে ভাষা জানতে হবে সেটা হলো HTML। HTML দিয়ে একটি ওয়েবপেজের যে মূল কঙ্কাল সেটা গঠিত হয়। HTML অনেক সহজ একটি প্রোগ্রামিং ভাষা। HTML শেখার জন্য আপনি অনলাইনে বিভিন্ন ওয়েবসাইট থেকেই শিখতে পারবেন। HTML শেখার জন্য আপনাকে একটি HTML ডকুমেন্টের গঠন স্ট্রাকচার অনেক ভালো ভাবে আয়ত্ত করতে হবে। এর পর আপনাকে HTML এলিমেন্ট, ট্যাগ, এট্রিবিউট এগুলো ভালোভাবে আয়ত্ত করতে হবে তাহলেই আপনি অনেক সহজেই HTML শিখতে পারবেন। HTML শেখার ক্ষেত্রে বিগিনারদের জন্য সেরা ওয়েবসাইট হলো w3schools, আপনি এখন থেকে খুব সহজেই HTML সম্পর্কে ভালো জ্ঞান অর্জন করতে পারবেন।


CSS:Cascading Style Sheets

CSS একটি ডিজাইনিং ভাষা। HTML দিয়ে একটি ওয়েবপেজ তৈরি করার পর সেটা ডিজাইন করার জন্য আপনাকে সিএসএস জানতে হবে। ওয়েবপেজে তিন ভাবে সিএসএস ইউজ করা যায় 

1. এক্সটার্নাল সিএসএস: আলাদা একটি সিএসএস ফাইল তৈরি করে হেড ট্যাগের মধ্যে লিংক করে দিয়ে যে সিএসএস ইউজ করা হয় সেটা এক্সটার্নাল সিএসএস।

2. ইন্টারনাল সিএসএস: HTML ডকুমেন্টের মধ্যে স্টাইল <style> ট্যাগ দিয়ে যে সিএসএস ইউজ করা হয় সেটা ইন্টারনাল সিএসএস।

3. ইনলাইন সিএসএস: HTML ট্যাগ এর মধ্যে স্টাইল এট্রিবিউট দিয়ে যে সিএসএস ইউজ করা হয় সেটা ইনলাইন সিএসএস।


JavaScript

JavaScript একটি প্রোগ্রামিং ভাষা যেটা ওয়েবপেজ ডাইনামিক করার জন্য ইউজ করা হয়। এছাড়া বিভিন্ন অনলাইন টুল তৈরি করার কাজে জাভাস্ক্রিপ্ট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। জাভাস্ক্রিপ্ট এর জনপ্রিয় কিছু ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন হলো: সময়, তারিখ, ক্যালকুলেটর, বয়স ক্যালকুলেটর, ক্যালেন্ডার ইত্যাদি যেগুলো সচরাচর সবাই তাদের ওয়েবপেজে ইউজ করে। JavaScript প্রথম তৈরি করা হয় 1995 সালে। নেটস্কেপ ব্রাউজার কোম্পানির ইঞ্জিনিয়ার Brendan Eich এটি তৈরি করেন। জাভাস্ক্রিপ্ট এর অনেক সিনট্যাক্স সি প্রোগ্রামিং থেকে ধার নেওয়া তাই যারা আগে থেকেই সি প্রোগ্রামিং শিখেছেন তারা সহজেই জাভাস্ক্রিপ্ট শিখে ফেলতে পারেন।


PHP:Hypertext Preprocessor

PHP একটি সার্ভার-সাইড স্ক্রিপ্টিং ভাষা। এটা 1995 সালে Rasmus Lerdorf তৈরি করেন। এটি ওয়েব ডেভলপমেন্টের জন্য অত্যন্ত উপযুক্ত একটি প্রোগ্রামিং ভাষা। বর্তমানে প্রায় সকল ওয়েব সার্ভার PHP সাপোর্ট করে। এখন পর্যন্ত এপ্রিল 2020 এর হিসাব অনযায়ী প্রায় অর্ধেক ওয়েবসাইট PHP ব্যবহার করে তৈরি করা হয়েছে। তাই আপনার তৈরি সাইটটিতেও নিশ্চই PHP ব্যবহার করা উচিত। PHP এর সম্পূর্ণ প্রসেস ক্লায়েন্ট কম্পিউটারের বদলে সার্ভার কম্পিউটারে হয়। প্রসেস হাওয়ার পর সেগুলোকে HTML এ রুপান্তর করে ব্রাউজারে প্রদর্শন করে। এর মধ্যে যেগুলো ব্রাউজারে দেখানোর দরকার সেগুলো HTML আকারে দেখায় আর যেগুলো দেখানোর দরকার হয় না সেগুলো লুকিয়ে ফেলে। আপনি w3schools থেকেই PHP এর বেসিক বিষয় গুলো শিখতে পারবেন।


Database

ওয়েবসাইটে ডেটাবেসের গুরুত্ব অপরিসীম। ভালো কোনো ওয়েব অ্যাপ্লিকেশনে ডেটাবেস লাগবেই। অনেক ডেটাবেস থাকলেও বর্তমানে রিলেশনাল ডেটাবেস অনেক বেশি ব্যবহৃত হয়। বর্তমানে কয়েকটি বিখ্যাত ডেটাবেস যেমন মাইএসকিউয়েল (MySQL), ওরাকল (Oracle), পোস্টগ্রি এসকিউয়েল (PgSQL) ইত্যাদি অনেক বেশি ইউজ করা হয়। একটি ডেটাবেসে তথ্য সংরক্ষণ করা যায় এবং প্রয়োজন অনুযায়ী সেই তথ্য ওয়েবপেজে প্রদর্শন করা যায়। ডেটাবেসের শত শত ফাংশন আছে। এগুলো ব্যবহার করে ডেটাবেসে জটিল ভাবে কোয়েরি করা যায় এবং গাণিতিক অপারেশন করে ডেটা প্রসেস করে সেটার ফলাফল দেখানো যায়।


কিভাবে ওয়েব ডেভলপমেন্ট শিখবেন

ওয়েব ডেভলপমেন্ট শেখার জন্য আপনাকে ধাপে ধাপে এগুতে হবে। ওয়েব ডেভলপমেন্ট শেখার সম্পূর্ণ প্রসেস এবার নিচে আলোচনা করা হলো।


1. ডেভলপমেন্ট শেখার জন্য আপনার প্রথম টার্গেট হলো এর জন্য প্রয়োজনীয় প্রোগ্রামিং ভাষাগুলো শেখা। যেহেতু আমাদের দেশে প্রতিষ্ঠানিক ভাবে ওয়েব ডেভলপমেন্ট শেখানো হয় না তাই আপনাকে কোনো অনলাইন কোর্সের মাধ্যমে শিখতে হবে। এর জন্য আপনি অনলাইনে কোনো প্রিমিয়াম বা ফ্রী কোর্সের মাধ্যমে শিখতে পারেন। আমাদের বাংলাদেশেও কিছু জনপ্রিয় ওয়েবসাইট আছে যারা প্রিমিয়াম কোর্স দিয়ে থাকে। তো আপনি চাইলেই তাদের কাছ থেকে কোর্স নিতে পারেন।

2. একসময় আপনি যখন ওয়েব ডেভলপমেন্ট এর জন্য প্রয়োজনীয় সকল প্রোগ্রামিং ভাষা শিখে ফেলবেন তখন আপনার কাজ হবে বাস্তবে সেগুলো প্রয়োগ করে অ্যাডভান্স দক্ষতা অর্জন করা। অ্যাডভান্স দক্ষতা অর্জনের জন্য আপনাকে বিভিন্ন ছোট খাটো ধরনের ওয়েবপেজ ডেভলপ করে সেটা অর্জন করতে পারেন। আপনাকে অবশ্যই নির্ভুল ভাবে কোড লেখার চেষ্টা করতে হবে। কেননা কোড ভুল লেখার কারণে সঠিক রেজাল্ট না আসলে মন খারাপ হতে যায়। তখন মনে হয় কোডিং করার কাজ আমার জন্য নয়, আমার দ্বারা কোডিং হবে না। তাই অবশ্যই ট্রায় করতে হবে নির্ভুলভাবে কোডিং করার। এভাবে ধীরে ধীরে আপনার কোডিং করার দক্ষতা বাড়বে।

3. ওয়েব প্রোগ্রামিং ভালোভাবে শেখা শেষ হলে আপনার সর্বশেষ টার্গেট হলো একটি পূর্ন ওয়েবসাইট ডেভলপ করা। আপনি একটি পুরো ওয়েবসাইট ডেভলপ করতে পারলে তবেই আপনার ওয়েব ডেভলপমেন্ট এর উপর দক্ষতা প্রকাশ পাবে। তাই আপনার সর্বশেষ টার্গেট হলো সুন্দর কালার কম্বিনেশন, রেসপনসিভ লেআউট, সুন্দর গ্রাফিক্স এবং ইউনিক ক্রিয়েটিভিটির সাথে একটি আকর্ষণীয় ওয়েবসাইট তৈরি করা তবেই আপনি একজন সাকসেসফুল ওয়েব ডেভলপার।


তো বন্ধুরা এই ছিল আজকের পোস্ট। আগামীতে দেখা হবে আবারো নতুন কোনো কন্টেন্ট নিয়ে। ততক্ষণ ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন এবং আমাদের সাথেই থাকুন।

Post a Comment

1 Comments